কাব্য গাহন 

কোভিড নাইনটিন-১

কুশির ফাঁকে ফাঁকে ফুল খেলানোর সময় এটাকোয়ারেন্টিনে আছে নদী—গাছপালাতেজপাতার ডালে লালটিকার বুলবুলিটাএকলা ঘুঘু, জোড়া ঘুঘু, হঠাৎ দেখা দোয়েলটা—নিমের ডগায় নদীর প্রেম চক্রাবক্রা মাছরাঙা শুধু চৈতালি বায়ুর চলাফেরা বেড়েছে অবাধউড়ছে বিরহনীলের বুকে শাদা শাদা মেঘের তুলাস্বকীয় সজ্জা ফিরেছে রাতের—শুনছি নির্জনতালুটপাট হয়ে যাওয়া রূপ ফিরে পেয়েছে বসন্ত কোলাহল কমেছে হাটে, বাট্টা কমেছে ঘাটে—সন্ধ্যার বাঁশঝাড়ে বেড়েছে বকের পাখার ঝাপটা— জঙ্গলে ভাঁটের ফুল, কলি এসেছে শিয়ালমুতরায়,তবুও ঘোমটা খোলেনি জোঁনাই পোকা—এবার লকডাউন হয়ে যাও খামোশ মন্ত্রীরাআসছে আমাবশ্যায় ঝাঁকে ঝাঁকে ফিরে আসুকআসছে আমাবশ্যায় ঝাঁকে ঝাঁকে ফিরে আসুকআলোর পাখিরা—

বিস্তারিত
কাব্য গাহন 

কবি ও কবিতা

ছদ্মনামে লেখার একটা মজা আছে। আগে বুঝতাম না, সুনীলের মতন কবিও কেনো নাম ভাঁড়িয়ে লিখতেন। সামাজিকমাধ্যমে আমার একটা প্রোফাইল রয়েছে, যাতে আমি ছদ্মনামে লিখি। এই প্রোফাইলটা আমাকে সেই বোধের জায়গাটা খুলে দিয়েছে। কদিন আগে একজন কবিকে ইনবক্সে জানালাম, তার ভুলের একটা জায়গা। তিনি গায়ে মাখলেন না। বরং নানা ভাবে প্রমান করার চেষ্টা করলেন তিনি লিখিয়ে হিসেবে অনেকটাই বড়। হাসলাম তার ছেলেমিতে। আমি সবসময় বলি, কবি হওয়ার আগে সাজাটা ঠিক না। গতবারের বই মেলায় একজনকে বলেছিলাম, ভাই এই যে আপনার কাঁধে ঝোলা, পায়ে চটি, এর সাথে কবিতার কী সম্পর্ক? উনি জবাব…

বিস্তারিত
কাব্য গাহন 

কাকন রেজার কবিতা: মিছিল

মিছিল নামে পথে, বিপথে তুমি আমি, তোমার আমার ভুলে মিছিল বিপথগামী। মিছিল নিয়ে যাবারসঠিক সময় আজ,কি হলো ধুর তোমারনিদান কালের কাজ! চিলির পথে মিছিলসেই মিছিলও আমার,সড়ক ভীষণ ডাকেসে ডাক পথে নামার। চলো নামি পথে —-

বিস্তারিত
কাব্য গাহন 

কাকন রেজার কবিতা: কাশ্মির

তোমার আমার দেখা হলো কাশ্মিরে ওই ঝিলের ধারে, এখন যেথায় মানুষেরা মৃত কিংবা কারাগারে। ঝিলের ঠিক পাশের গাঁয়ে ঝলমলে সে রেশম চাদর, এখন সেথায় নীরব আঁধার নয়নগুলো ভরা ভাদর। তুলার মতো পাহাড়গুলো সেই দুজনে বরফ খেলা, শুভ্র তুষার রক্ত রঙিন হঠাৎ করেই ভাঙলো মেলা। তোমার আমার দেখা হওয়া নিদারুণ এক দুখের কাহন, কাশ্মির আজ বিষাদ ভরা অভিশাপের অবগাহন।

বিস্তারিত
কাব্য গাহন 

কাকন রেজার ‘রঙের পদ্য’

মৃত্যুর মিছিলে দেখি নায়িকার ঝাড়ু‘উনি’ ভাবে এই ভালো, সঙ্গেতে নর্তকী, অষুধেতে দারু। সেশনটা শেষ হোক দেখি তারপরলেসনটা দিয়ে দিতে হই তৎপর। ছবি তোলো, ধোঁয়া ছাড়ো, নটী বিনোদিনীতোমাদের চেহারাটা ভালো করি চিনি,ঝিম মেরে ভাসো তুমি তেলে আর জলেকিভাবে যে মেশো তুমি, কোন কৌশলে! রঙ মেখে সঙ সেজে তালে আছো ঠিকতাল বুঝে আঁধারেতে, সময়েতে ক্লিক,ভালো ভালো খুব ভালো, শিখে নিতে চাইতোমাদের সাথে যেন মিশে যেতে পাই। মিশে গিয়ে রবো ভালো খুব ঝালে-ঝোলেপেছনেতে ধামাধারা শ্লোগানেতে বলে,আমাদের ভাই হলো ফুলের মতনটাকা-কড়ি, নারি-গাড়ি করেন যতন। শেখান কৌশল তার, খুব চায় মনে টিভি আর ফেসবুকে দেখে…

বিস্তারিত
কাব্য গাহন দিনলিপি 

মোকাররম রানা-এর কবিতাগুচ্ছ

জুতা নিয়া ১ জুতা পরলে লাইট জ্বলত প্যাক প্যাক কইরা শব্দ হইত হাঁটতাম লাইট জ্বলত আর প্যাক প্যাক করে শব্দ হইত আহারে আমি নিজের পায়ের দিকে নিজের জুতার দিকে মুগ্ধ চোখে তাকায়া থাকতাম আহারে আমার প্যাক প্যাক শব্দ হওয়া আহারে আমার লাইট জ্বলা জুতা ২ জুতাগুলা পরে আমি কত জায়গায় গেলাম কত কি দেখলাম আর ছিঁড়ে গেলে সেলাই কইরা নিতাম যখন আর সেলাই করা যাইত না তখন ফালায়া দিলাম আহারে আহারে আমার ছেঁড়া জুতারা ৩ জুতা বদলাইতে বদলাইতে বদলাইল পথঘাট আহারে আমি জুতা বদলাইতে বদলাইতে বড় হইলাম আহারে আমার ছেঁড়া…

বিস্তারিত
কাব্য গাহন দিনলিপি 

জুয়েল মোস্তাফিজ-এর ৭টি কবিতা

ইটস টাইম টু ডিস্কো… পদ বুঝে অপরাধ, মদ বুঝে মাতাল… ওসি বুঝে থানা, কয়েদি বুঝে হাজতখানা… তুমি বুঝে আমি একটা কোরবানি ঈদ… রাধে? জীবন বাঁশি কাঁন্দে অপরাধে… আইনের পুকুরে তেলাপিয়া একটা মাছ না পাখি? পানি বুঝতে পারে না দরদী… আমার ভাতের গুয়া মেরে নেংটা থালা কেন বাজাও মুনিব? বাংলাদেশ; জেট বিমানে আসছে তোমার বাজেট… সবুজ আর লাল; রঙ্গিলা মা আমার কাঁদছে তোমার পতাকায়…মায়ের কবর থেকে কত উঁচুতে উঠলে মানুষ? মাথা খুলে রেখেছি… ব্যথা খুলে রেখেছি… আজানের সাথে ঝগড়া করে আল্লা বেঁধেছি খোপায়… ফুলের নাম ভুলে গিয়ে গোলাপকে করেছি খুন… অন্ধকার!…

বিস্তারিত
কাব্য গাহন 

সাঈদ বিলাস-এর কবিতাগুচ্ছ

কবি ১. কবি- এই পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন বৃক্ষ, বিস্তৃত এক বন সৃজন করে চলে,প্রাণের স্পন্দনে-! বয়ে চলে,বয়ে চলে- বাতাসে রেণু ছড়ায় প্রাণের বিপুল সম্ভাবনায়। ২. কবি- ভালোবেসে কিংবা না বেসে এক পাহাড়সম বেদনা- এই জগতের সমান বয়সী ভালোবাসায়- জীবনের সীমাহীন,সীমাহীন ভারত্বের সাক্ষ্য নিয়ে হেঁটে চলে পৃথিবীর পথে পথে,জীবনের বাঁকে বাঁকে। ৩. কবি- ভাঙে-গড়ে আবার ভাঙে,আবার গড়ে! এক অনন্ত চক্রাবর্তে- জীবনের সাথে খেলে যায়-আজীবন! ৪. কবি- এক অভিশপ্ত নগরী! খুঁজে ফেরে অন্তর্গত ঘৃণার এক জমিন- খুঁড়ে তুলে নেয়, তার ভালোবাসার পবিত্র হেমলক! পান করে যায় আজীবন- হৃদয়ের,হৃদয়ের একান্ত তৃষ্ণায়। ফ্যাসিস্ট বাতাসে…

বিস্তারিত
কাব্য গাহন 

তানজিনা ফেরদৌস তাইসিন-এর কবিতাগুচ্ছ

প্রেম একটা ভ্রমণ আসলে তাইলে আমারে বল, প্রেম তোমারে কই নিয়া যাবে? একটা ইউটোপিয়ান পৃথিবী ভাবতেছ? যেইখানে চাঁদ হাসে, পাখি গায়, তারা ঝিলমিলায়? প্রেম বরং একটা ভ্রমণ হইতে পারে, আমার সাথে তোমার একটা ভ্রমণ। যেইখানে আমি-তুমির সাথে টং দোকানের চা-ওয়ালাও থাকে। রাস্তার টহল পুলিশ যখন তখন দাঁড় করায় আমাদের ! রাস্তার হলুদ আলোর নিচে এরপর আমরা হাইটা হাইটা যাই, হাইটা হাইটা একি বৃত্তে ঘুরপাক খাই। কিংবা ধর, সকাল বেলার চা কাঁচামরিচ, বরবটির আটি, মধুর বোতল, ইলিশ মাছের পেটি, সরিষা মাখা ঝোল এইসবেতে তুমি মিশা থাক এইসবেতে আমি মিশা থাকি এইসবেতে…

বিস্তারিত