কথোপকথন দিনলিপি 

ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে ডা. আশিকুর রহমান রনক

ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে ঈদুল আজহার সময় ঢাকার বাইরের প্রস্তুতি কেমন ছিল, তা জানতে আমরা কথা বলেছি বাগেরহাট জেলার এক উপজেলা কমপ্লেক্সে কর্মরত ডাক্তার আশিকুর রহমান রনকের সঙ্গে। তিনি তার অভিজ্ঞতা থেকে সেখানকার প্রস্তুতি ও বাস্তবতার কথা যেমন বলেছেন, তেমনি দিয়েছেন সচেতনতামূলক পরামর্শ। দিনলিপির পক্ষে ড. রনকের সাক্ষাৎকার করেছেন ফাহমিদা উর্ণি। দিনলিপি: আপনিতো ঢাকার বাইরে কাজ করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, রামপাল, বাগেরহাটে আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার পদে কর্মরত আছেন। সেখানকার ডেঙ্গু পরিস্থিতি কী? ডা. আশিকুর রহমান রনক: ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে একজন মাত্র রোগী এখানে এসেছিলেন চিকিৎসা নিতে। তিনি দুইদিন ভর্তি ছিলেন।…

বিস্তারিত
কথোপকথন দিনলিপি 

সংবাদকর্মী খোরশেদ আলম-এর দিনলিপিতে বানভাসী মানুষের বিপন্নতা

‘প্রথম আলো’র তরুণ প্রতিশ্রুতিশীল সংবাদকর্মী খোরশেদ আলম। কাজ করেন বগুড়া জেলার প্রতিনিধি হিসেবে। তবে বন্যার্ত মানুষদের বিপন্নতা সরেজমিন পরিদর্শনে সদ্য তিনি গাইবান্ধা ঘুরে এসেছেন। নিবিড় মনোযোগ দিয়ে পর্যবেক্ষণ করেছেন বানভাসী মানুষের আর্তনাদের চিত্র। দিনলিপির সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে খোরশেদ বগুড়া ও গাইবান্ধার মানুষের বিপন্ন পরিস্থিতির কথা তুলে ধরেছেন। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বাধন অধিকারী। উত্তরবঙ্গের বন্যা পরিস্থিতির একাংশ সরেজমিন প্রত্যক্ষ করেছেন আপনি। কী কী দেখলেন? আমি বগুড়া এবং গাইবান্ধার বন্যা কাভার করেছি। দুই জেলার প্রেক্ষাপট আলাদা। গাইবান্ধায় প্লাবিত হয়েছে লোকালয়। বিশেষ করে শহরের মধ্যে পানি ঢুকেছে। সদর, ফুলছড়ি, সাঘাটাসহ চারটি উপজেলা প্লাবিত হয়েছে…

বিস্তারিত
কথোপকথন দিনলিপি 

‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অজানা ভীতি আমাদের মস্তিষ্কে গেঁথে গেছে’

অভিনয় শিল্পীদের মধ্যে সামাজিক-রাজনৈতিক বিভিন্ন ইস্যুতে যাদেরকে আমরা সরব দেখি সচরাচর, তাদের মধ্যে বন্যা মির্জার অবস্থান নিঃসন্দেহেই সামনের কাতারে। টেলিভিশনের বাইরেও মঞ্চের একজন একনিষ্ঠ কর্মী তিনি। একইসঙ্গে অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউনের বিপণন বিভাগের প্রধান। ব্যক্তিগতভাবে পড়ুয়াদের জন্য বুক টক নামের একটা প্ল্যাটফর্ম চালান ফেসবুকে। সম্প্রতি ‘সংবাদকর্মীর দিনলিপি’র সঙ্গে পেশাগত দুই ক্ষেত্রের যোগসূত্র, সংবাদমাধ্যম, মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও সেন্সরশিপ এবং জেন্ডার সংবেদনশীলতাসহ বিভিন্ন বিষয়ে একান্তে কথা বলেছেন তিনি। বন্যা মির্জা বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমের সেন্সরশিপ প্রশ্নে কথা বলতে গিয়ে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টের প্রসঙ্গ টেনেছেন। তিনি বলেছেন, ওই আইনের কারণে একটা অজানা ভীতি আমাদের…

বিস্তারিত
কথোপকথন দিনলিপি 

‘দুদকের চিঠি হুমকিমূলক ও অগ্রহণযোগ্য’

অপরাধ বিষয়ক সাংবাদিকতার এক স্বনামধন্য সাংবাদিক দীপু সারোয়ার। জঙ্গিবাদ বিষয়ক অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় বাংলাদেশের অন্যতম পথিকৃত তিনি। সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ ও অধিকার প্রশ্নে বরাবরই সোচ্চার। দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব)সাধারণ সম্পাদক হিসেবে। দীপুর বর্তমান কর্মস্থল দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউন। সেখানে তিনি বিশেষ প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত। ওই সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত তার এক এক্সক্লুসিভ প্রতিবেদনকে ঘিরে গত দুই/তিন দিন ধরে তোলপাড় চলছে সাংবাদিক কমিউনিটিতে। বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত দীপু সারোয়ারের এক্সক্লুসিভ প্রতিবেদনে উঠে আসে ডিআইজি মিজানুর রহমানের সঙ্গে দুদক কর্মকর্তাদের ঘুষ লেনদের প্রসঙ্গ। হাতে আসা অডিও রেকর্ডের ভিত্তিতে দীপু…

বিস্তারিত
কথোপকথন 

‘আমাকে একুশে টেলিভিশন ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছিল’

হারুন উর রশীদের সঙ্গে আলাপচারিতা হারুন উর রশীদ জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলের ঢাকা প্রতিনিধি। একইসঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউনের নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে। অপরাধ বিষয়ক ও অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় তিনি বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ ব্যক্তিত্ব। একুশে টেলিভিশনের পরিকল্পনা সম্পাদক থাকাকালে ‘একুশের চোখ’ নামের সংবাদবিষয়ক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে তিনি অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার এক অনন্য নজির স্থাপন করতে সক্ষম হয়েছিলেন। তবে সবকিছুর ঊর্ধ্বে সাংবাদিকতায় হারুন উর রশীদের অনন্যতার জায়গা হলো তার কমিউনিটি ফিলিং, সততা ও সাহস। আমাদের আলাপচারিতার ফোকাসও সেখানেই।‘সংবাদকর্মীর দিনলিপি’র সঙ্গে হারুন উর রশীদ-এর আলাপচারিতায় তার কর্মজীবনের গল্পও এসেছে। সংবাদকর্মী হিসেবে তিনি যেমন…

বিস্তারিত