দিনলিপি 

দুই সাংবাদিককে পাঠানো নোটিশের কার্যকারিতা নেই: দুদক চেয়ারম্যান

সর্বশেষ আপডেটঃ

পড়তে সময় লাগবে: 2 মিনিট

প্রকাশিত প্রতিবেদনের ব্যাপারে সাক্ষ্য দিতে দুই সাংবাদিককে আপত্তিকর ভাষায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পাঠানো নোটিশটির কার্যকারিতা নেই বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সভাপতি আবুল খায়েরের সঙ্গে বৈঠকে দুদক চেয়ারম্যান এ কথা জানান।

গত ২৩ জুন ‘লন্ডন প্রবাসী দয়াছের অডিও সংলাপে দুদকের ওরা কারা?’ শিরোনামে বিশেষ প্রতিনিধি দীপু সারোয়ারের একটি প্রতিবেদন বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশ হয়।  ডিআইজি মিজানের কাছ থেকে দুদকের সাবেক পরিচালকের ঘুষ গ্রহণ বিষয়ক এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করেন দীপু সারোয়ার। একই বিষয়ে এটিএন নিউজে ইমরান হোসেন সুমনের প্রতিবেদনও প্রচার হয়। অভিযোগটি তদন্ত করতে বাধ্য হচ্ছে দুদক। তদন্তের অংশ হিসেবে সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য ক্র্যাবের সাধারণ সম্পাদক দীপু সারোয়ার এবং প্রশিক্ষণ ও তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক ইমরান হোসেন সুমনকে চিঠি দিয়েছেন দুদক পরিচালক। দুদকে হাজির হওয়ার জন্য নোটিশ দেওয়া হয় তাদের। নোটিশে দীপু সারোয়ারকে কার্যালয়ে না গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়।

ক্র্যাবের দফতর সম্পাদক শহিদুল ইসলাম রাজী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের সঙ্গে ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সভাপতি আবুল খায়েরের বৈঠক হয়। সে সময় আপত্তিকর ওই নোটিশ ও সাংবাদিকদের ক্ষোভের বিষয়ে আলোচনা করেন তারা। আলোচনায় দুদক চেয়ারম্যান নোটিশের কার্যকারিতা নেই বলে ক্র্যাব সভাপতিকে জানিয়ে দেন। বৈঠক শেষে আবুল খায়ের জানান, ভুল বোঝাবুঝির অবসান হয়েছে। দুই সাংবাদিককে পাঠানো দুদকের নোটিশের কোনো কার্যকারিতা নেই।

কোনও প্রতিবেদক যখন অপরাধ/দুর্নীতি বিষয়ক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করেন, তখন সেই ঘটনা তদন্তে প্রতিবেদকের সহায়তা নেওয়া নতুন কিছু নয়। এক্ষেত্রে প্রতিবেদককে অফিসে আসার অনুরোধ করে অথবা প্রতিবেদকের সঙ্গে দেখা করে তার কাছে তদন্তের ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ সহায়তা নেওয়াটাই চল। তবে দীপু সারোয়ারকে পাঠানো দুদকের চিঠির বিশেষত্ব হলো, তাকে চিঠি পাঠিয়ে দুদকের আইনি এখতিয়ার খাটিয়ে সাক্ষ্য দিতে তলব করা হয়েছে এবং সাক্ষ্য না দিলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যধারা গ্রহণের হুমকি দেওয়া হয়েছে। এই হুমকিকে স্বাভাবিকভাবে নেয়নি সাংবাদিক কমিউনিটি। সামাজিক মাধ্যমের পাশাপাশি দুদক কার্যালয়ের সামনে দাঁড়িয়ে সশরীরে প্রতিবাদ জানিয়েছে সাংবাদিকরা। এমন হুমকিসুলভ চিঠি প্রত্যাহার না করা হলে লাগাতার কর্মসূচি গ্রহণের অঙ্গীকার করেন তারা।

আরও পড়ুনঃ

Leave a Comment